Pre-loader logo

নিরপেক্ষ ভেন্যুতে খেলতে চায় বসুন্ধরা কিংস

নিরপেক্ষ ভেন্যুতে খেলতে চায় বসুন্ধরা কিংস

বসুন্ধরা কিংস এএফসি কাপে দারুণ সূচনা করেছিল। গত ১১ মার্চ বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে মালদ্বীপের ক্লাব টিসি স্পোর্টসকে ৫-১ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল প্রিমিয়ার লিগের চ্যাম্পিয়নরা। আর্জেন্টাইন তারকা ফুটবলার হারনান বার্কোস একাই চারটি গোল করেছিলেন। দুরন্ত শুরুর পর বসুন্ধরা কিংস তাকিয়েছিল সামনের ম্যাচগুলোর দিকে। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে সব কিছুই থমকে যায়। প্রিমিয়ার লিগ বাতিল হয়ে যায়। ফিফা সব ম্যাচ স্থগিত করে। এএফসি কর্তৃপক্ষও ফিফার পথেই হাঁটে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতি এখন অনেক দেশেই স্বাভাবিক হয়ে আসছে। এ অবস্থায় ইউরোপিয়ান ফুটবল মাঠে ফিরেছে। এশিয়াতেও ফুটবল মাঠে ফেরার প্রস্তুতি নিচ্ছে। এএফসি কাপ কবে মাঠে গড়ানো যায়, এ নিয়ে বিভিন্ন দেশের ফেডারেশন এবং সংশ্লিষ্ট ক্লাবগুলোর সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্স করছে এএফসি। তারই অংশ হিসেবে ৫ জুন দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের চারটি দলকে নিয়ে সভা করতে যাচ্ছে তারা। বসুন্ধরা কিংস এই সভায় অন্যতম দল হিসেবে অংশ নেবে।

‘বাংলাদেশের চেয়েও ভারতের অবস্থা খারাপ। করোনাভাইরাসের কারণে আমরা ভারতে ভ্রমণ করতে পারি না। মালদ্বীপও অতটা নিরাপদ নয়। সেই কারণে আমার মনে হয় নিরপেক্ষ ভেন্যুতে খেলা হওয়াটাই যুক্তিযুক্ত হবে।’

কী নিয়ে আলোচনা হবে সেই সভায়? প্রথমত, বাংলাদেশ, ভারত ও মালদ্বীপের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি জানতে চাইবে এএফসি। এরপর দলগুলো কবে নাগাদ নিজেদেরকে খেলার জন্য প্রস্তুত করতে পারবে, তাও জানতে চাইবে তারা। কিন্তু বাংলাদেশ ও ভারতের করোনাভাইরাস পরিস্থিতি দিনে দিনে খারাপের দিকেই যাচ্ছে। সব কিছু স্বাভাবিক হতে কতটা সময় লাগবে তা বলা কঠিন। এ অবস্থায় কবে নাগাদ এএফসি কাপের জন্য প্রস্তুত হতে পারবে দলগুলো বলা যাচ্ছে না। তবে কিংস সভাপতি ইমরুল হাসান এক ভিন্ন প্রস্তাব সামনে রাখছেন। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের চেয়েও ভারতের অবস্থা খারাপ। করোনাভাইরাসের কারণে আমরা ভারতে ভ্রমণ করতে পারি না। মালদ্বীপও অতটা নিরাপদ নয়। সেই কারণে আমার মনে হয় নিরপেক্ষ ভেন্যুতে খেলা হওয়াটাই যুক্তিযুক্ত হবে।’ তিনি দুটি দেশের নামও প্রস্তাব করেছেন। মালয়েশিয়া অথবা থাইল্যান্ড। কিংস সভাপতি বলেন, ‘মালয়েশিয়া অথবা থাইল্যান্ড হলে আমাদের জন্য ভালো হবে। কারণ, এখানে করোনাভাইরাসের খুব একটা প্রকট নেই। চারটি দল একই ভেন্যুতে খেলতে পারে বলেও মনে করেন ইমরুল হাসান।

এদিকে দল গোছানোর জন্য বেশ খানিকটা সময় প্রয়োজন হবে কিংসের স্প্যানিশ কোচ অস্কার ব্রুজোনের। গত মার্চের পর থেকেই কিংসের ফুটবলাররা ঘরবন্দী সময় কাটাচ্ছেন। ফিটনেস নিয়ে অনেক কাজ করতে হবে কোচকে। অবশ্য অস্কার ব্রুজোন এসব নিয়ে এখনই ভাবছেন না। তিনি বলেছেন, ‘দিন কয়েকের মধ্যেই তো সভা। সেখানে কী সিদ্ধান্ত হয় দেখা যাক।’ অভিষেক মৌসুমেই বসুন্ধরা কিংসকে লিগ শিরোপা উপহার দিয়েছেন স্প্যানিশ এ কোচ। এবার এএফসি কাপেও দারুণ কিছু করতে চান।

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.