Pre-loader logo

এবার পথ চলার সাহস পেল সোনিয়া

এবার পথ চলার সাহস পেল সোনিয়া

চাকরির আশায় রাজশাহী শহরে এসে করোনা পরিস্থিতিতে আটকা পড়ে কষ্টে থাকা সোনিয়া খাতুনের পাশে দাঁড়িয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। উপহারসামগ্রীর পাশাপাশি তাঁর কৃত্রিম পায়ের ব্যবস্থাও করছে দেশের শীর্ষস্থানীয় এ শিল্পগোষ্ঠী। মাত্র দুই বছর বয়সে ট্রেনে কাটা পড়ে এক পা হারিয়েছিলেন দরিদ্র পরিবারের মেয়েটি।

সোনিয়াকে নিয়ে সম্প্রতি প্রথম আলোয় প্রকাশিত ‘তার পথেও করোনার কাঁটা’ শীর্ষক প্রতিবেদনটি বসুন্ধরা গ্রুপের ভাইস চেয়ারম্যান ও বসুন্ধরা মাল্টি ফুড লিমিটেডের ম্যানেজিং ডিরেক্টর সাফিয়াত সোবহানের নজরে আসে। গতকাল মঙ্গলবার তাঁর পক্ষ থেকে সোনিয়াকে একটি নতুন কৃত্রিম পা লাগানোর জন্য এক লাখ টাকা ও বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে উপহারসামগ্রী তুলে দেওয়া হয়।

সোনিয়া খাতুনের বাড়ি পুঠিয়া উপজেলার পূর্ব ধোপাপাড়া গ্রামে। ট্রেনে কাটা পড়ে একটি পা হারানোর পর ২০১৪ সালে ল্যাবএইড গ্রুপ তাঁকে একটি কৃত্রিম পা লাগিয়ে দিতে সহায়তা দেয়। কিন্তু বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কৃত্রিম পা–টি খাটো হয়ে যায় এবং দীর্ঘদিন ব্যবহারে নষ্ট হয়ে যায়। সংসারে সচ্ছলতা ফেরাতে ও উচ্চমাধ্যমিকের পড়াশোনা চালানোর পাশাপাশি চাকরির আশ্বাসে প্রশিক্ষণ নিতে সম্প্রতি রাজশাহী শহরে আসেন। সঙ্গে তাঁর মা–ও আসেন। মা হোটেলে কাজ করে থাকা–খাওয়ার খরচ জোগাতেন। কিন্তু প্রশিক্ষণ শেষে চাকরিতে যোগদানের ঠিক পাঁচ দিন আগে করোনার কারণে বন্ধ হয়ে যায় সব। কাটা পড়ে তাঁর এক পায়ে চলার পথটাতেও।

সোনিয়াকে নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর তাঁর বাসায় প্রতিনিধি পাঠান সাফিয়াত সোবহান। পরে বসুন্ধরা মাল্টি ফুডের পক্ষে ডিজিএম (হেড অব বাল্ক সেলস) মো. রেদোয়ানুর রহমানের মাধ্যমে সোনিয়া ও তাঁর মায়ের হাতে কৃত্রিম পায়ের জন্য নগদ এক লাখ টাকা তুলে দেওয়া হয়।

আবেগাপ্লুত সোনিয়া বলেন, ‘তারা আমাকে নগদ এক লাখ টাকা ও পরিবারের জন্য অনেক উপহারসামগ্রী দিয়েছেন। আমি খুবই খুশি। দিনটি আমার জীবনে একটি স্মরণীয় দিন হয়ে থাকবে।’

Copyright © 2020 Sayem Sobhan Anvir. All Rights Reserved.